লেখাপড়া

বিসিএসে ইংরেজিতে ভালো করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ লেখকদের তালিকা এবং সাহিত্যের যে বইগুলো সম্পর্কে জানা থাকা দরকার

বিসিএস ইংরেজি প্রস্তুতিতে আজ থাকছে ইংলিশ সাহিত্যিকের সাহিত্যকর্ম নিয়ে আলোচনা। ইংলিশ সাহিত্যিকের সাহিত্যকর্ম নিয়ে প্রশ্ন আসে না এমন কখনো হয়নি, কিন্তু এটা নিয়ে সবাইকে ঝামেলায় পড়তে হয়। প্রিলির জন্য সব ইংলিশ সাহিত্যিকের সাহিত্যকর্ম গুরুত্বপূর্ণ নয় তাই যে সব ইংলিশ সাহিত্যিকের সাহিত্যকর্ম বিশেষ ভাবে পড়বেন তাদের নাম নিচে দেওয়া হল-

1) Geoffrey Chaucer,

2) William Shakespeare,

3) John Milton,

4) Jonathan Swift,

5) Alexander Poe,

6) Jane Austen,

7) William Wordsworth,

8) S.T. Coleridge,

9) Lord Byron,

10) PB Shelley,

11) John Keats,

12) William Blake,

13) Charles Dickens,

14) Charlotte Bronte,

15) Robert Browning,

16) Alfred Lord Tennyson,

17) Thomas Carlyle,

18) Robert Frost,

19) Ernest Hemingway,

20) Toni Morrison,

21) WB Yeats,

22) T.S. Eliot,

23) GB Shaw,

24) Oscar wild,

25) JK Rowling.

আশা করি এই বিষয়গুলো English এ দ্রুততম প্রস্তুতি নিতে ভূমিকা রাখবে।

 

কিছু বই রয়েছে যা ইংরেজি সাহিত্য না হলেও ইংরেজি ভাষাতেই সারা পৃথিবীতে প্রধানত পঠিত হয়ে থাকে সে হিসেবে সেগুলোও ইংরেজি সাহিত্যের মর্যাদা পায়। তাই এখানে আলোচিত একশোটি বইয়ের মধ্যে মাঝে মাঝে এমন কিছু বইও আসবে যার মূল পাণ্ডুলিপিটি ইংরেজিতে লেখা হয়েছিল না। তাছাড়া আদীতে ইংরেজি ভাষাটি এতটা পোক্তও ছিল না, বরং সেখানে ল্যাটিনের প্রভাব ছিল অনেক বেশি। যে কারণে থমাস মুর ‘ইউটোপিয়া’ বইটি ইংরেজিতে না লিখে ল্যাটিন ভাষাতে লিখেছিলেন।

ইলিয়াড এন্ড ওডেসি

১. ইলিয়াড ও ওডেসি -গ্রিক মহাকবি হোমার

* গ্রিক মহাকাব্য;

* প্রাচীন গ্রিসের ইলিয়ন শহরের নামানুসারে মহাকাব্যটির নামকরণ করা হয়;

* মহাকাব্যটি ২৪টি স্বর্গে বিভক্ত;

* এতে ১৬০০০ পঙ্ক্তি কবিতা আছে;

* এটি মূলত একটি যুদ্ধের কাহিনী;

* যুদ্ধ শুরু হয়েছিল হেলেন নামে একজন নারীকে কেন্দ্র করে;

* যুদ্ধে গ্রিকদের সেরা বীর ছিলেন এথিলিস;

* এবং ট্রয়দের পক্ষের বীর ছিলেন হেক্টর;

* যুদ্ধে ট্রয়ানরা পরাজিত হয়, এবং হেক্টর এথিলিস কর্তৃক নিহত হন;

* গ্রিকরা ট্রয় নগরী জ্বালিয়ে দেয়।

হোমার

* হোমার মূলত ইলিয়াড এবং ওডসি ’র লেখক হিসেবে খ্যাত;

* তিনিই প্রথম মহাকাব্য (ইউরোপে) রচনা করেন;

* ইউরোপের প্রথম সাহিত্য রচয়িতা হিসেবেও তাকেই গণ্য করা হয়;

* ইলিয়াড পাশ্চাত্য সাহিত্যের প্রাচীনতম রচনা।

* হোমারের জন্ম-মৃত্যু জ্ঞাত নয়, তবে ধারণা করা হয় তিনি খ্রিস্টপূর্ব আটশো শতকে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।


২. ঔদিপাস (Oedipas the king) – সফোক্লিস

সফোক্লিসের বিখ্যাত নাটক ঔদিপাস মূলত ইংরেজি ভাষাতেই আধুনিক যুগে বিশ্বব্যাপী পঠিত হয়েছে এবং হয়ে থাকে। সফোক্লিসের বিখ্যাত এই নাটকটি থেকেই Oedipus complex নামে মনস্তাত্ত্বিক টার্মটির সূচনা হয়েছে।

সফোক্লিস

* সফোক্লিস (খ্রিস্টপূর্ব ৪৯৭/৪৯৬-৪০৬/৪০৫);

* তিনজন গ্রিক ট্রাজেডিয়ানদের মধ্যে তিনি একজন যাদের লেখা সংরক্ষিত (খুঁজে পাওয়া গেছে) হয়েছে;

* অন্য দুইজন হলেন এসকাইলাস এবং ইউরিপিদেস;

* ঔদিপাস ছাড়াও সফোক্লিসের লেখা আরো কয়েকটি বিখ্যাত নাটক রয়েছে। এর মধ্যে আন্তিগনে এবং ইলেক্ট্রা অন্যতম।

৩. ইউটোপিয়া -থমাস মুর

বইটিতে একটি আদর্শ সমাজ ব্যবস্থা কল্পনা করা হয়েছে। একটি দ্বীপ রাষ্ট্র কল্পনা করে, সেখানকাজ ধর্মীয়, সামাজিক এবং রাজনৈতিক ব্যবস্থা সম্পর্কে বলা হয়েছে। ১৫১৬ খ্রিস্টাব্দে ল্যাটিন ভাষায় গ্রন্থটি রচিত হয়। তবে ইংরেজি ভাষাতেই বইটি সর্বাধিক পঠিত হয়েছে।

‘ইউটোপিয়া’ অর্থ কোথাও না। উপন্যাসটিতে মুর এমন একটি দেশের কল্পনা করেছিলেন যেরকম দেশ কোথাও ছিল না। মূলত উপন্যাসটিতে দুটি ভাগ রয়েছে। প্রথম অংশ তখনকার চেনা-জানা রাষ্ট্রের (তৎকালীন ব্রিটেন, যেখানে মুর নিপীড়িত, নির্যাতিত, ভাগ্যহারা মানুষের চিত্র এঁকেছেন) বর্ণনা, এবং দ্বিতীয় অংশে আদর্শ সমাজের চিত্র অংকন করেছেন। যদিও ইউটোপিয় শব্দটি এখন অলিক কল্পনা বুঝাতে ব্যবহৃত হয়, কিন্তু মুরের ইউটোপিয়া অলীক ছিল না, এটা ছিল একটি আদর্শ রাষ্ট্রের প্রত্যাশা। বলা যায়, কম্যুনিজমের ধারণা মুরের ‘ইউটোপিয়া’ উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে।

রেঁনেসা যুগের প্রথম মানবতাবাদী থমাস মুর (১৪৭৮–১৫৩৫) ছিলেন একজন আইনজীবী, দার্শনিক, লেখক এবং পুর্নজাগরণের (Renaissance) অন্যতম একজন যোদ্ধা। তিনি ল্যাটিন এবং ইংরেজি উভয় ভাষাতে সাহিত্য রচনা করেছেন।

ইংরেজি ভাষায় তিনি ডিসকাশন অন পলিটিক্যাল সাবজেক্ট এবং বায়োগ্রাফিকস রচনা করেছেন।

৪. ড. ফস্টাস -ক্রিস্টোফার মারলো

দ্য ট্র্যাজিকাল হিস্ট্রি অফ দ্য লাইফ অ্যান্ড ডেথ অফ ডক্টর ফস্টাস (The Tragical History of the Life and Death of Doctor Faustus); সংক্ষেপে ডক্টর ফস্টাস (Doctor Faustus) ক্রিস্টোফার মার্লোর লেখা একটি অনবদ্য ইংরেজি নাটক। ফাউস্টের শয়তানের কাছে আত্মবিক্রয়ের বিখ্যাত কাহিনিটি অবলম্বনে এই নাটক রচিত হয়েছে। ১৫৯৪ সালে নাটকটি প্রথম মঞ্চস্থ হয়। এবং মার্লোর মৃত্যুর ১১ বছর পর ১৬০৪ সালে নাটকটি পুস্তকাকারে প্রথম প্রকাশিত হয়। এটি এলিজাবেথান পিরিয়ডের অন্যতম একটি আলোচিত এবং বিতর্কিত ট্রাজেডি নাটক।

৫. স্প্যানিশ ট্রাজেডি -থমাস কিড

কিডের অনেক লেখা খুঁজে পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হয় শেকসপিয়ারের হেমলেট নাটকটি থমাস কিডের স্প্যানিশ ট্রাজেডি অনুসরণে রচিত।

থমাস কিড (১৫৫৮-১৫৯৪) ছিলেন একজন সফল নাট্যকার।

Spanish Tragedy ’র মধ্য দিয়ে tragic revenge play ’র সূত্রপাত হয়। যা পরবর্তীতে শেকসপিয়রের নাটকে দেখা যায়।

ইংরেজি সাহিত্য ও সাহিত্যিক একটি বিস্তৃত বিষয়। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে গেলে ইতিহাস, সাহিত্য, দর্শন, রাজনীতি -ইত্যাদি অনেক কিছু পাশাপাশি আলোচনা করার প্রয়োজন হয়। ‘লামিয়া’ বইটি সে চাহিদা অনেখানি মেটাবে বলে বিশ্বাস করি। এখানে মূলত ইংরেজি সাহিত্যের উল্লেখযোগ্য সাহিত্য এবং সাহিত্যিক সম্পর্কে ধারণা দেয়া হয়েছে। মাঝে মাঝে কোনো কোনো গুরুত্বপূর্ণ বই নিয়ে একটু বিস্তৃত আলোচনা করা হয়েছে। দু’ একটি কবিতার অনুবাদ করা হয়েছে। তবে মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে- ইংরেজি সাহিত্যের প্রধানতম সাহিত্য এবং সাহিত্যিকদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়া।

৬. ফেইরি কুইন (১৫৯০-১৫৯৬)
এডমান্ড স্পেন্সার (১৫৫২–১৫৯৯) এলিজাবেথান পিরিয়ডের বিখ্যাত একজন লেখক। ফেইরি কুইন ইংরেজি সাহিত্যের একটি অনবদ্য সৃষ্টি।

কাব্যগ্রন্থটি স্পেন্সার তিন দফায় লেখেন। প্রথম তিন খণ্ড প্রকাশিত হয় ১৫৯০ সালে। Ice and Fire স্পেন্সারের বিখ্যাত একটি কবিতা। ফেইরি কুইন কাব্যগ্রন্থে The Faerie Queene তার বিখ্যাত একটি দীর্ঘ্য কবিতা।

স্পেন্সারকে বলা হয় কবিদের কবি। উইলয়িাম ওয়ার্ডসওয়ার্থ, জন কিটস, র্লড বায়রন, আলফ্রডে র্লড টেনিসনের মত পরবর্তী প্রথম সাররি কবিরা তার কাব্যের সমজদার ছিলেন।

Ice And Fire – by Edmund Spenser

My love is like to ice, and I to fire:
How comes it then that this her cold so great
Is not dissolved through my so hot desire,
But harder grows the more I her entreat?
Or how comes it that my exceeding heat
Is not allayed by her heart-frozen cold,
But that I burn much more in boiling sweat,
And feel my flames augmented manifold?
What more miraculous thing may be told,
That fire, which all things melts, should harden ice,
And ice, which is congeal’d with senseless cold,
Should kindle fire by wonderful device?
Such is the power of love in gentle mind,
That it can alter all the course of kind.

৭. দ্যা জিউ অফ মাল্টা (১৫৯০-১৫৯৪)

ভূমধ্যসাগরের মাল্টা দ্বীপে সংগঠিত স্পেন এবং অটোমান সম্রাজ্যের মধ্যে সংগঠিত একটি ধর্মযুদ্ধকে কেন্দ্র করে Christopher Marlowe নাটকটি লিখেছিলেন।

বলা হয়- শেকসপিয়রের The Merchant of Venice নাটকটি মারলোর The Jew of Malta ’র অনুকরণে লেখা হয়েছে।

৮. ভোলপনে (১৬০৬)

ভোলপনে একটি কমেডি নাটক। এটি জ্যাকোবান যুগের (১৫৬৭-১৬২৫) সেরা নাটক হিসেবে বিবেচিত হয়।

ভোলপনে একজন ধূর্ত শিয়াল, সে নাটকটির কেন্দ্রীয় চরিত্র। মূলত ভোলপনে চরিত্রটি এমনভাবে পুরো নাটক জুড়ে একটা সাসপেন্স তৈরি করে রাখে যে দর্শক বাধ্য হয় মঞ্চ আঁকড়ে থাকতে। উল্লেখ্য, বইটি প্রকাশের আগেই নাটকটি মঞ্চস্থ হয়েছিল।

ভোলপনে মূলত একজন ধনী ব্যক্তি, নাটকে সে ভেনিশের লোভী মানুষদের ফাঁদে ফেলে এবং আরো ধনী হয়। ভোলপনে ধনী হয় এবং অসুস্থতার ভাণ করে, শহরের লোভী মানুষেরা তাকে উপহার পাঠায়। মূলত নাটকটিতে দেখানো হয়েছে কীভাবে ভয়ঙ্কর লোভের বশবতী হয়ে মানুষ বিভিন্ন ধরণের ভুল এবং অপরাধকর্মে নিযুক্ত হয়।

ভোলপনে ছলনাকারী, যে ছলনা করে এবং ছদ্মবেশ ধারণ করে, প্রতারণা করে আনন্দ পায়। যে পটভূমি সৃষ্টি করে ভোলপনে নিজের চরিত্রকে ফুটিয়ে তোলে সেটি দুর্বোধ্য হলেও মনস্তাত্ত্বিকভাবে সে খুব সহজ হিসেবে উপস্থাপিত হয়। ভোলপনে পুরো নাটক জুড়ে অন্যকে বোকা বানাতে থাকে এবং শেষে সে বোকা হয়, তার সঙ্গীরাও নিজেদের ফাঁদে নিজেরা পড়ে।

নাটকটির মূল কৃতিত্ব শুধু কাহিনীতে নয়, সংলাপ রচনা এবং ভাষা শৈলীতেও ভোলপনে নাটকটি অনবদ্য। নাটকে সিলিয়া যেভাবে চারিত্রিক দৃঢ়তা দেখিয়েছে সেটিও পাঠককে আকৃষ্ট করে। প্রথম দেখায় সিলিয়াকে যেভাবে কল্পনা করেছিল ভোলপনে পাঠকও সেভাবে তাকে চিন্তা করতে বাধ্য হয়, কিন্তু পরবর্তীতে দেখা যায় সিলিয়া তেমন নারী নয়। অর্থাৎ, নারীদের সম্পর্কে পুরষের যে সহজ ধারণা সেটি লেখক সিলিয়া চরিত্রের মধ্য দিয়ে ভুল প্রমাণ করেছেন।

বেন জনসন (১৫৭২-১৬৩৭) এলিজাবেথান পিরিয়ডের বিখ্যাত নাট্যকার। শেকসপিয়রের পর তাকেই ইংরেজি সাহিত্যের সেরা নাট্যকার ধরা হয়। একইসাথে তিনি কবিও ছিলেন। তিনি মূলত গীতিকবিতা লিখতেন। On My First Sonne (son), বেন জনসন ’র উল্লেখযোগ্য একটি কবিতা। To Celia তার অসাধারণ একটি গীতিকবিতা।

To Celia

Drink to me only with thine eyes,

And I will pledge with mine;

Or leave a kiss but in the cup,

And I’ll not look for wine.

The thirst that from the soul doth rise

Doth ask a drink divine;

But might I of Jove’s nectar sup,

I would not change for thine.

I sent thee late a rosy wreath,

Not so much honouring thee

As giving it a hope, that there

It could not withered be.

But thou thereon didst only breathe,

And sent’st it back to me;

Since when it grows, and smells, I swear,

Not of itself, but thee.

কবিতাটি (টু সিলিয়া) ইংরেজিতে একটি বিখ্যাত গান হিসেবে গীত হয়। Twelfth Night নাটকে শেকসপিয়রের বিখ্যাত গান “O mistress mine where are you roaming” কবিতার সাথে বেন জনসনের To Celia কবিতাটি তুলনীয়।

O Mistress mine where are you roaming?

O Mistress mine where are you roaming?

O stay and hear, your true love’s coming,

That can sing both high and low.

Trip no further pretty sweeting.

Journeys end in lovers’ meeting,

Every wise man’s son doth know.

What is love, ’tis not hereafter,

Present mirth, hath present laughter:

What’s to come, is still unsure.

In delay there lies no plenty,

Then come kiss me sweet and twenty:

Youth’s a stuff will not endure.


৯. হেসপেরেডিস (১৬৪৮)

To the Virgins
Upon Julia’s Clothes
To Daffodils
by Robert Herrick

♣ হেরিকের কবিতাগুলি “নেবেল নামবার্স” এবং “হেসপেরেডিস” নামে দুই খণ্ডে কাব্য সংকলতি হয়।To the Virgins কবিতাটি হেসপেরেডিস সংকলনের অন্তর্ভুক্ত।

♠ কথিত আছে–রবার্ট হেরিক (১৫৯১-১৬৭৪) সাহিত্যের সরাইখানায় যেতে যেতে কবি হয়েছেন। মদ, নারী, সঙ্গিতের প্রতি হেরিকের বিশেষ ভালোবাসা (মোহ) ছিল। যাজক হয়েছিলেন মূলত জীবিকার তাগিদে। To Daffodils কবিতাটিতে Donn-এর কবিতার নৈরাশ্যবাদের প্রতিধ্বনি খুঁজে পাওয়া যায়। তবে হেরিকের কবিতাগুলি তাত্ত্বিকভাবে থমাস ন্যাশের কবিতার কাছাকছি।

To the Virgins, to Make Much of Time

By Robert Herrick

Gather ye rosebuds while ye may,
Old Time is still a-flying;
And this same flower that smiles today
Tomorrow will be dying.

The glorious lamp of heaven, the sun,
The higher he’s a-getting,
The sooner will his race be run,
And nearer he’s to setting.

That age is best which is the first,
When youth and blood are warmer;
But being spent, the worse, and worst
Times still succeed the former.

Then be not coy, but use your time,
And while ye may, go marry;
For having lost but once your prime,
You may forever tarry.

১০. হোলি সনেটস (১৬৩৩)

Batter My Heart
Death Be Not Proud By John Donne

Batter My Heart এবং Death Be Not Proud কবিতা দুটি হোলি সনেটস বা ডিভাইন সনেটস কাব্যগ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত।

জন ডান (১৫৭২-১৬৩১) এলিজাবেথান পিরিয়ডের একজন বিখ্যাত কবি এবং গীর্জার পাদ্রী ছিলেন। ডান ’র কবিতাগুলি বৈচিত্রময় এবং দ্ব্যার্থবোধক। তার প্রেমের কবিতা যেমন উল্লেখযোগ্য, একইসাথে আধ্যাত্মিক কবিতাগুলিও বিখ্যাত। ডানের কবিতায় সিদ্ধান্তহীনতা বিশেষভাবে লক্ষণীয়। দেখা যায় প্রথম স্তবকে তিনি যা বলেন, পরে এসে তার বিপরীত কথা বলছেন, এজন্য তাকে প্যারাডক্সিকাল পোয়েটও বলা হয়।

মৃত্যু, তুমি গর্বিত হইও না

মৃত্যু তুমি গর্বিত হইও না, যদিও অনেকে তোমাকে বলে
তুমি চিরন্তন এবং ভয়ংকর, না তুমি তা নও,
যাদেরকে তুমি পরাজিত করেছে বলে ভাব,
তারা মরে না, দরিদ্র মৃত্যু, আমাকেও তুমি মারতে পারো না।
বিশ্রাম এবং ঘুমের ছবিতে দেখি তোমার মূর্তি,
বিশ্রামে কত সূখ, তাহলে তোমাতে আরো কত না সূখ,
আমাদের শ্রেষ্ঠ সন্তানেরা তোমার সাথে গিয়েছে,
দেহ ফেলে আত্মার মুক্তিতে।

তুমি ভাগ্যের দাসত্ব কর, তুমি দাসত্ব কর সুযোগের,
রাজাদের এবং উদ্বিগ্ন সকল মানুষের,
তুমি বিষে, যুদ্ধে এবং মহামারিতে সংগঠিত মৃত্যু কুড়াও,
এভাবে মাদকওতো আমাদের ঘুমিয়ে রাখে,
সে ঘুম তোমার চেয়েও কড়া; তাহলে কিসের তোমার এত গর্ব;
একটি ছোট্ট ঘুম কেটে গেলে চিরতরে আমরা জেগে উঠব,
এবং মৃত্যু বলে কিছু থাকবে না; মৃত্যু, তুমিই বরং মরবে।

মূল : জন ডান
অনুবাদ : দিব্যেন্দু দ্বীপ

***এই ধরনের আরও টিপস-ট্রিকস, অফার এবং শিক্ষামূলক পোস্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন***

[চলবে]

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ

You must be logged in to post a comment Login

নতুন পোস্ট’সমূহ

To Top