জেনে নিন

প্রাইজ বন্ড কি এবং প্রাইজ বন্ড চেক করার সবচেয়ে সহজ উপায়

প্রাইজ বন্ড বাংলাদেশে  এক সময় অনেক জনপ্রিয় ছিল।কারো  জন্মদিনে বা বিয়েতে উপহার বা  পরীক্ষায় কৃতিত্ব অর্জনে ও উপহার বা পুরষ্কার হিসেবে  প্রাইজ বণ্ডের বেশ প্রচলন ছিল। প্রাইজ বন্ড এত জনপ্রিয় হওয়ার কারন, এটি দারুন একটি সঞ্চয়  এর পদ্ধতি।আপনার যখন ইচ্ছে প্রাইজ বন্ড টি ব্যাঙ্কে জমা দিয়ে টাকা তুলতে পারেন এবং এর কোন মেয়াদ নেই।অথবা এটি সঞ্চয় করতে পারেন ড্র তে মিলিয়ে দেখার জন্য।মজার বিষয় হল প্রাইজ বণ্ডের বাহক  ই বণ্ডের মালিক। এর কোন মালিকানা নেই। যে কোন বয়েসের যে কেউ প্রাইজ বণ্ডের মালিক হতে পারে।

প্রাইজ বন্ড মুলত সরকারের প্রতি জনগণের একটি সুদ মুক্ত বিনিয়োগ। প্রতি বছর ৪ বার প্রাইজ বন্ড ড্র অনুষ্ঠিত হয়। সাধারণত, প্রতি তিন মাস অন্তর (৩১ জানুয়ারী, ৩০ এপ্রিল, ৩১ জুলাই ও ৩১ অক্টোবর) ‘ড্র’ অনুষ্ঠিত হয়। তবে উক্ত তারিখগুলোর কোনটিতে কোন সাপ্তাহিক ছুটি (বর্তমানে শুক্র ও শনিবার) বা সরকারি ছুটি (সাধারণ/নির্বাহী আদেশে/ঐচ্ছিক), অথবা অন্য কোন কারনে প্রাইজ বন্ডের ড্র অনুষ্ঠিত হতে না পারলে পরবর্তী কার্যদিবসে তা সম্পন্ন করা হয়।প্রতি ড্র তে প্রতি সিরিজে পুরস্কার

  • (ক) ৬,০০,০০০ টাকার প্রথম পুরস্কার একটি
  • (খ) ৩,২৫,০০০ টাকার দ্বিতীয় পুরস্কার একটি
  • (গ) ১,০০,০০০ টাকার তৃতীয় পুরস্কার দু’টি
  • (ঘ) ৫০,০০০ টাকার চতুর্থ পুরস্কার দু’টি
  • (ঙ) ১০,০০০ টাকার পঞ্চম পুরস্কার চল্লিশটি

প্রতি ড্র এর বিজয়ীদের নাম ও প্রাইজ বন্ড নাম্বার  জাতীয় দৈনিক পত্রিকা গুলোতে প্রকাশ করা হয়।যারা বিজয়ী তারা ড্র এর পর ২ বছর পর্যন্ত পুরস্কার দাবি করতে পারেন। তিনি বিজয়ী হওয়ার  ২ বছরের মধ্যে পুরস্কার দাবি না করলে তিনি আর পুরস্কার দাবি করতে পারবেন না।

এখনও প্রাইজ বণ্ডের যথেষ্ট  চাহিদা রয়েছে। তবে বর্তমানে এই ডিজিটাল যুগে পত্রিকা দেখে এত ধৈর্য নিয়ে প্রাইজ বণ্ডের নাম্বার মেলানোর  মানসিকতা বলতে গেলে কারোর ই নেই। ফল স্বরূপ,প্রাইজ বন্ড ধুলো জমা হয়ে পড়ে থাকে ড্রয়ারের কোণে।

এমন কি হতে পারত না, ড্র হলেই ফলাফল সরাসরি পৌছে গেল আপনার কাছে  এবং কোন পত্রিকা দেখার ঝামেলা ছাড়াই আপনি জেনে গেলেন আপনি বিজয়ী হয়েছেন কিনা !

প্রাইজ বন্ড চেক করার সবচেয়ে সহজ উপায় হল মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করা।একটি মান সম্মত প্রাইজ বন্ড চেকার অ্যাপ  আপনার সবটুকু প্রয়োজন পুরন করতে পারে।আমি  আজ এমন একটি মান সম্মত প্রাইজ বন্ড চেকার অ্যাপের সাথে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেব।

বাংলাদেশী প্রাইজবন্ড চেকার অ্যাপ টি থেকে যে  সুবিধাগুলো  পাবেন ঃ

  • এই অ্যাপ টি আপনি ব্যবহার করতে পারবেন বিনা মূল্যে।
  • ১০ টি প্রাইজবন্ড অ্যাড করুন কোন চার্জ ছাড়াই, ১০ টির বেশি প্রাইজ বন্ড অ্যাড করতে চাইলে আপনার চাহিদা অনুযায়ী (যত গুলো প্রাইজ বন্ড অ্যাড করতে চান সেই অনুযায়ী সাবস্ক্রিপশন করুন)।
  • ড্র এর সাথে সাথে ড্র  এর ফলাফল অ্যাপটি পৌঁছে দেবে আপনার মোবাইলে।

কীভাবে অ্যাপ টি ব্যবহার করবেন? 

প্রথমে গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ টি ডাউনলোড করে ইন্সটল করুন।অথবা Prize Bond Checker লিখে সার্চ করে অথবা নিচের লিঙ্কে ক্লিক করে অ্যাপ টি ডাউনলোড করতে পারেন ঃ

প্রাইজবন্ড চেকার অ্যাপ

অ্যাপ টি ইন্সটল করার পর  আপনার নাম, ইমেইল এবং ফোন নাম্বার এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশান করুন।এরপর আপনার মোবাইলে একটি একটিভেশন   কোড পৌছে যাবে। অ্যাপ টিতে এই কোডটি প্রবেশ করিয়ে আপনার রেজিস্ট্রেশান টি সফল করুন। লগ ইন করে আপনার প্রাইজ বন্ড গুলো যুক্ত করুন।

***এই ধরনের আরও টিপস-ট্রিকস, অফার এবং শিক্ষামূলক পোস্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন***

অ্যাপ টি কেন ব্যবহার করবেন?

  • অ্যাপটি একটি দক্ষ সাপোর্ট টিম দ্বারা পরিচালিত, যে কোন সমস্যায় দ্রুত সমাধান পাবেন।
  • আপনি খুব সহজেই  বিকাশ বা ব্রাক বাঙ্কের মাধ্যমে সাবস্ক্রিপশন কিনতে পারেন।
  • আপনি ক্যাশ অন ডেলিভারির  মাধ্যমেও সাবস্ক্রিপশন করতে পারেন।

অ্যাপ টি সম্পর্কে আপনাদের মতামত জানাতে ভুলবেন না কিন্তু।  🙂

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ

You must be logged in to post a comment Login

নতুন পোস্ট’সমূহ

To Top