কী কেন কীভাবে

মাত্র ৭ দিনে ৭ কেজি ওজন কমান

দীর্ঘদিনের ডায়েটে একটা একঘেয়েমি চলে আসে, ফলে বেশিদিন সেটা চালানো সম্ভব হয় না। কিন্তু যদি এমন কোনো ডায়েট চার্ট পাওয়া যেতো যা মেনে চললে এক সপ্তাহেই ওজন কমে যাবে ৭ কেজি পর্যন্ত। এমনটাই যদি আপনি চান তবে মেনে চলুন জি এম ডায়েট। যার মানে জেনারেল মোটরস ডায়েট। জি এমে রয়েছে ৭ দিনের ডায়েট প্ল্যান। যা মেনে চললে আপনার কমতে পারে ৭ কেজি পর্যন্ত ওজন।


প্রথম দিন সপ্তাহের প্রথম দিন শুধুই পছন্দের ফল খান। এদিন কখন কতো পরিমান ফল আপনি খাবেন তার কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। শুধু মাথায় রাখবেন প্রথম দিনে কলা খাওয়া যাবে না। তরমুজ, পাকা পেঁপে, আপেল, কমলালেবু, আঙুর বেশি করে খেতে পারেন। আর সঙ্গে এদিন ৮-১০ গ্লাস পানি পান করুন।

দ্বিতীয় দিন আপনার জন্য শুধুই সবজি দিবস এদিনটা। সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে জলখাবারে একটি সিদ্ধ আলু খান। বাকি সারাদিনে আলু আর টমেটো ছাড়া যে কোনো সবজি যতো খুশি পরিমানে খান। গাজরের স্যুপ বা বাধাকপির স্যুপ খেতে পারেন। সেক্ষেত্রে হাল্কা অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। তবে লবন দেবেন না। খুব অসুবিধে হলে একটু চাট মশলা ও অরিগ্যানো ছড়িয়ে খেতে পারেন। এদিন আপনার জন্য ৮-১০ গ্লাস পানি।
তৃতীয় দিন এদিন ফল ও সবজি দুটোই খেতে হবে আপনাকে। তবে অন্যান্য আর কিছু খেতে পারবেন না। এদিনও কলা এবং টমেটো খেতে পারবেন না। সবচেয়ে ভালো হয় যদি সকালে ও স্ল্যাক টাইমে আপনি ফল আর লাঞ্চ ও ডিনারে সবজি খান। এদিন সবজির স্ট্রুও খেতে পারেন। সঙ্গে আগের দুইদিনের মতো ৮-১০ গ্লাস পানি তো থাকছেই।
চতুর্থ দিন সপ্তাহের চতুর্থ দিনটা শুধু দুধ ও কলার দিন। সারাদিনে ৬-৮টি কলা ও ৭৫০ মিলিলিটার দুধ খান। আপনি দুধ ও কলা আলাদা আলাদা খেতে পারেন আবার একসঙ্গেও মিল্কশেক বানিয়ে খেতে পারেন। এদিন একবার আপনি যে কোনো একটি সবজির স্যুপ খেতে পারেন। তবে না খেলেই বেশি ভালো হয়। পানি পান করবেন আগের মতোই। অর্থাৎ ৮-১০ গ্লাস।
পঞ্চম দিন এবার শুরু হলো ডায়েটের আমিষ উপাদান। এদিন অন্তত ৫০০ গ্রাম মুরগীর মাংস খেতে হবে সঙ্গে ৬টি টমেটো। তবে মুরগীর মাংস না খেলে ৬টি ডিম ও ৬টি টমেটো খেতে পারেন। এদিন আপনি টমেটো দিয়ে চিকেন স্ট্রু বানাতে পারেন, বা চিকেন ও টমেটো রোস্ট করেও খেতে পারেন। অন্য কিছু খাওয়া যাবে না। এদিন অবশ্য আপনাকে পানি খাওয়ার মাত্রা বাড়াতে হবে (১০-১২ গ্লাস)।
ষষ্ঠ দিন এদিন টমেটো বাদে চিকেন এবং অন্যান্য যতোখুশি সবজি খেতে পারেন। পঞ্চম দিনের মতোই মাংস বা ডিম খেতে পারেন। সঙ্গে সবজি দিয়ে স্ট্রু বা স্যুপ। এদিন টমেটো একেবারেই খাবেন না। পানি আগের দিনের মতোই।
সপ্তম দিন এদিন তো আপনার জন্য উৎসব। কারণ ডায়েটের শেষ দিন। ব্রাউন রাইস খেতে পারেন এদিন। সবজি এমনকি ফলের রসও। সকালে এক বাটি সবজি দিয়ে বানানো ব্রাউন রাইস বা সিদ্ধ চালের ভাত খেতে পারেন। বেলা ১১টায় এক গ্লাস ফলের রস। লাঞ্চে আবার ওই একই ব্রাউন রাইস খান সঙ্গে তরমুজ বা আঙুর। লাঞ্চে ২ ঘণ্টা পর আবার এক গ্লাস ফলের রস খান। তবে এদিনও কলা খাওয়া যাবে না। আবার রাতে এক বাটি ব্রাউন রাইস।

***এই ধরনের আরও টিপস-ট্রিকস, অফার এবং শিক্ষামূলক পোস্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন***

উল্লেখ্য, এ নিয়ম চালুর পর প্রত্যেকদিনই হাল্কা ব্যায়াম করতে হবে আপনাকে। তবে এ সময় এমনিতেই একটু দুর্বলতা থাকে তাই পেশির ব্যায়াম করবেন না।

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ

You must be logged in to post a comment Login

নতুন পোস্ট’সমূহ

To Top