কী কেন কীভাবে

শুধু কথা বলে সহজে মানুষের মন জেতার দশ উপায়

মানুষের মন জেতা অত সহজ কাজ নয়। আপনি যত ভাল মানুষই হন। যত দান-খয়রাতিই করুন মানুষের মন জেতা চারটিখানি কথা নয়। কিন্তু কিছু সহজ উপায় নিলে মানুষের মন জেতার অনেক কাছাকাছি চলে যাওয়া যায়। নিন এই দশ উপায়ে মানুষের মন জিতুন–

১) কথা শুনুন মন দিয়ে বা ভাল শ্রোতা হন : আপনার সঙ্গে যখন সে কথা বলছে তার কথা মন দিয়ে শুনুন। কারও মনে জায়গা পাওয়ার সেরা উপায় হল ভাল শ্রোতা হওয়া। কথা শুনে প্রয়োজন হলে প্রশ্ন করুন। ভাল লাগলে প্রশংসা করুন। পুরো কথাটা শুনে তারপর মন্তব্য করুন।

২) চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলুন: চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলুন। এতে কথার গুরুত্ব বাড়ে। শ্রোতার মনোযোগ বাড়ে। প্রকাশ্য সভায় বা মিটিংয়ে বক্তব্য রাখতে হলে চেষ্টা করুন একে একে সবার চোখের দিকে তাকিয়ে তাকিয়ে কথা বলতে।

৩) কথা বলার আগে তার দৃষ্টিকোণ দিয়ে ভাবুন: কথা বলার সময় সামনের মানুষটার মত করে ভাবুন। ধরুন আপনি কোনও বয়স্ক লোকের সঙ্গে স্মার্টফোন নিয়ে কথা বলছেন। তাহলে এমনভাবে আপনি কথা বলুন যেটা সামনের সেই বয়স্ক মানুষটা নিজের সঙ্গে রিলেট করতে পারে। আপনি খুব জানেন বলেই শুধু বলে যাবেন না। চিন্তা করে দেখুন সামনের মানুষটার পরিপ্রেক্ষিতে আপনি কী বললে কথাটা ঠিক দিকে এগোয়। আসলে কথা বলারও একটা দাঁড়িপাল্লা থাকে। কখনই এমন কথা বলে দেবেন না যেন আপনার পাল্লাটা চট করে নিচে বা উপরে উঠে যায়। ভারসাম্য রাখুন।

৪) যুক্তি দিয়ে ভাবুন কিন্তু মন থেকে বলুন: যুক্তি দিয়ে ভাবুন। কিন্তু কথা বলার সময় মনকে বলতে দিন। দেখবেন সামনের মানুষটার কাছে গুরুত্ব পাবেন।

৫) বডি ল্যাঙ্গুয়েজ বা শরীরীভাষায় পরিবর্তন আনুন: বডি ল্যাঙ্গুয়েজ বা শরীরীভাষা একটা মানুষকে অনেক উপরে বা নিচে উঠিয়ে/নামিয়ে দিতে পারে। কারও সঙ্গে যখন কথা বলবেন তখন নিজের পা-হাতের দিকে খেয়াল রাখুন। ধরুন আড্ডার সময় হাত পা নেড়ে কথা বললে আড্ডা জমে। আবার প্রেমের সময় চোখের ওঠা নামাই সব কাজ করে দেয়। মোদ্দা কথা হল শরীরীভাষাটাকে পজিটিভ রাখুন দেখবেন লোকের মন জেতার কাজটা সহজ হবে।

৬) কথা শোনার সময় অন্য কোনও কাজ করবেন না: আপনি যখন কথা শুনছেন, তখন অন্য কাজ করবেন না। এক মার্কিন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্প্রতিক সমীক্ষা বলছে, অন্তত ৬৫ শতাংশ মানুষ কথা শোনার সময় মোবাইল বা ট্যাবের ব্যবহার করেন। কথা শোনার সময় অন্য কাজ করলে সামনের মানুষটার অবচেতন মনে আপনার সম্পর্কে খারাপ ধারনা হয়।

৭) প্রশংসা করুন, কিন্তু অবশ্যই মন থেকে: অবশ্যই প্রশংসা করুন। কিন্তু প্রশংসা খুব বিষম বস্তু। একটু এদিক ওদিক হলেই প্রশংসাটা তোষামোদ বা আমাদের পাতি বাংলা ভাষায় তেল হয়ে যায়। এক্ষেত্রে এক কাজ করতে পারেন। ঠিক করে নিন প্রশংসা করার সময় শুধু মনের কথাই শুনবেন। দেখবেন কাজে দিয়েছে।

৮) কথায় ছোট ছোট পরিবর্তন আনুন: কথায় ছোটখাটো পরিবর্তন বড় বদল আনে। ধরুন সামনের মানুষটা আপনাকে যে কথাটা বলল সেটা আপনার জানা কথা। তখন আপনি স্বাভাবিকভাবেই বলবেন, I know বা আমি জানি। যদি সত্যি তার মনে জায়গা করতে চান তা হলে ওই কথাটা না বলে, বলুন you are right বা তুমি একদম ঠিক বলেছো। দেখবেন এই ছোট পরিবর্তন আপনাকে সামনের মানুষটার মনে জায়গা করে দেবে।

৯) সব সময় ‘হ্যাঁ-তে হ্যাঁ, না তে না’ বলবেন না:  মানুষের একটা ভুল ধারনা থাকে। আমরা ভাবি মানুষের কথায় কথা মেলালেই বোধহয় জনপ্রিয় থাকা যায়। কিন্তু পরিসংখ্যান বলে ঠিক তার উল্টো কথা। সাধারণত মানুষ প্রশংসা শুনতে পছন্দ করলেও, প্রশংসার মাঝে তার খামতি ধরিয়ে দিলে সে সামনের মানুষটাকে আরও বেশি পছন্দ করে। সব সময় ‘হ্যাঁ-তে হ্যাঁ, না তে না’ বললে কথা খুব বেশি বাড়ে না। আর ওই বিজ্ঞাপনে বলে না ‘বাত করনে সে হি বাত বনতা হ্যায়’…

***এই ধরনের আরও টিপস-ট্রিকস, অফার এবং শিক্ষামূলক পোস্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন***

১০) কথোপকথনে নতুন কোনও দৃষ্টিকোণ আনুন:  সামনের মানুষটার সঙ্গে যখন কথা বলবেন তখন কথার মাঝে নতুন কোনও অ্যাঙ্গেল বের করুন। ধরুন আপনি টি ২০ ক্রিকেট নিয়ে কথা বলছেন। তখন আপনি বলতেই পারেন মাছের বাজারের কথা। ক্রিকেটের সঙ্গে মাছের বাজার যোগ করে যদি সত্যি অন্য কোনও দৃষ্টিকোণ আনতে পারেন, তাহলে শ্রোতার মনে আপনার জায়গা পাকা। আসলে মানুষ নতুন কিছু শুনতে খুব ভালবাসে। সেই নতুনটা যদি আপনি দেন তাহলে তো আপনার পোয়া বারো।

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ

You must be logged in to post a comment Login

নতুন পোস্ট’সমূহ

To Top