বিউটি টিপস

চুলের উজ্জ্বলতা বাড়াতে পাতিলেবু ! কীভাবে ব্যবহার করবেন জেনে নিন

চুল নেই মাথায়! দুশ্চিন্তায় আরও ফাঁকা হচ্ছে মাথা, বড় করে তৈরি হচ্ছে গড়ের মাঠ? না! আর দুঃখ নয়। মুশকিল আসান করতে নিজের চুল ঘন করার সিক্রেট শেয়ার করছি আমরা।

কোমর অবধি চুল না হয়, নাই থাকল। কিন্তু মাথায় তো ক’টা চুল থাকবে, যাতে টাক না দেখা যায়। কিন্তু চুলের এমনই দশা একটু এদিক-ওদিক হাওয়া দিলেই চুল ফাঁক হয়ে টাক বেরিয়ে পড়ে। টেনে চুল আঁচড়াতে গেলে দশবার ভাবতে হয়, সামনের দিকে কপালের উপর ক’টা চুল ফেলে রাখব যাতে, মাথার সামনেটা ফাঁকা না দেখায়। চুল শ্যাম্পু করলে বা আঁচড়ালে তো আর ঘরের মেঝের দিকে তাকাতে ইচ্ছে করে না। মাথায় চুল নেই এদিকে ঘরের চারপাশে থিকথিক করছে চুল।

মোদ্দাকথা, রাপুনজেলের মতো ভাগ্যি তো আর সক্কলের হয় না! তাই নিয়ে সারাদিন বসে-বসে দুঃখ করেও লাভ নেই। তার চলুন চলো দেখি আমার শনের নুড়িকে একটু পালিশ করে যদি সিনেমার নায়িকাদের চুলের মতো সুন্দর করতে পারি!

শ্যাম্পুর পরে লেবুর রস

এটা কিন্তু আপনাদের করতেই হবে। সপ্তাহে অন্তত দুদিন চুল ভাল করে শ্যাম্পু করে নেবেন। ভলিউম বাড়ানোর জন্য বাজারে অনেক শ্যাম্পু কিনতে পাওয়া যায়। সেই শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারি। কিন্তু যাদের চুল খুব ড্রাই, তারা এই শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন না। তারা নরম্যাল শ্যাম্পুই ব্যবহার করবেন। চুল ভাল করে শ্যাম্পু করা হয়ে গেলে একটা পুরো পাতিলেবুর রস বের করে পুরো চুলে ভাল করে লাগাবেন। পাতিলেবুর রস চুলকে খুব ফুরফুরে করে দেয়। চুলগুলো একে অপরের উপর লেপটে পড়ে থাকে না। ফলে পরিমাণে চুল একটু বেশি দেখায়।

ঘন চুলের প্যাক

সপ্তাহে অন্তত একবার একটা ডিম আর দই দিয়ে প্যাক বানিয়ে মাথায় লাগিয়ে রাখুর। আধঘণ্টা পরে শ্যাম্পু করে ধুয়ে নিন। এতে চুলের ভলিউমও বাড়বে, চুলের পুষ্টিও জোগাবে।

অ্যালোভেরা গাছের জেলও চুলের গোড়ায় লাগাতে পারেন। এতে চুলের গোড়া মজবুত হয় এবং চুলের গ্রোথ বাড়ায়।

ছাঁচি পেঁয়াজ, অর্থাৎ একদম ছোট-ছোট লাল পেঁয়াজ নিন দুটো। এবার পেঁয়াজ দুটো থেঁতো করে তার রস লাগান চুলের গোড়ায়। পেঁয়াজের রসে কিন্তু মাথায় নতুন চুল গজায়। ফলে এমনিই চুলের গোছ বাড়ে।

পাকা কলা চটকে দই আর মধুর সঙ্গে মিশিয়ে চুলে লাগাতে পারেন। এতে রুক্ষ চুল হয় মসৃণ।

হেয়ারকাট

শুধু শ্যাম্পু করেও যদি মন না ভরে, তা হলে হেয়ারকাট তো আছেই। চুলের কাট পালটালেও কিন্তু চুলের ভলিউম বেড়ে যায়। এমনিতেই ছয় সপ্তাহ বাদে-বাদে হেয়ার ট্রিম করানো উচিত। তা হলে চুল এমনিতেই ভাল থাকে।

***এই ধরনের আরও টিপস-ট্রিকস, অফার এবং শিক্ষামূলক পোস্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন***

তাছাড়া চুল কাটলে এমনিতেই খানিকটা ভলিউম অ্যাড হয়ে যায়। সেখানে যদি অনেকগুলো লেয়ারে ভাগ করে চুল কাটা যায়, তা হলে চুলের গোছ বেশি মনে হবে। তবে লেয়ারে মুখের চারপাশ ঘিরে অনেকটা চুল থাকে, মুখটা দেখতে ভাল লাগে। কিন্তু চুলের নীচটা খুব সরু হয়ে আসে। চুলের এন্ডটা সরু থাকাটা যদি পছন্দ না হয়, সেক্ষেত্রে ব্লান্ট বা বব (স্মল অর লং) কেটে নিতে পারেন। এই কাটে চুলের ভলিউম অবশ্যই বাড়বে।

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ

You must be logged in to post a comment Login

নতুন পোস্ট’সমূহ

To Top