বিউটি টিপস

নিয়মিত চুল না আঁচড়ালে কি হতে পারে জানেন?

নিয়মিত চুল না আঁচড়ালে কি হতে পারে জানেন?
চুলের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে যে কাজগুলি রোজ করা উচিত। তার মধ্যে অন্যতম হল চুল আঁচড়ানো। এমনটা না করলে ধীরে ধীরে চুল খারাপ হতে শুরু করে। সেই সঙ্গে চুল পরা বেড়ে গিয়ে টাক পরে যাওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। আসলে চুল আঁচড়ানোর সময় স্কাল্পে রক্ত চলাচল খুব বেড়ে যায়। ফলে চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। সেই সঙ্গে আরও কিছু উপকার মেলে। যেমন…

১.চুল পরিষ্কার হয়:
ধুলো ময়লার হাত থেকে চুলকে বাঁচাতে অনেকেই খুব দামি শ্যাম্পু ব্যবহার করে থাকেন। তবে ভুলে যান যে চুলকে পরিষ্কার রাখতে চুল আঁচড়ানোর থেকে ভাল কিছু হয় না। পরিবেশে উপস্থিত নানা ক্ষতিকর উপাদানের হাত থেকে চুলকে বাঁচাতে বাস্তবিকই চুল আঁচড়ানোর থেকে ভাল অভ্যাস আর কিছু হয় না।

২. স্কাল্পে জমে থাকা অ্যাসিডের স্থর সরে যায় :
একথা হয়তো আপনাদের জানা নেই যে আমাদের স্কাল্পে প্রতিনিয়ত ইউরিক অ্যাসিড সহ একাধিক অ্যাসিড জমতে থাকে। এই অ্যাসিডের স্থরকে পরিষ্কার না করলে নানা ধরনের স্কাল্পের রোগ হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। এক্ষেত্রে চুল আঁচড়ানো দারুন কাজে আসতে পারে। আসলে এমনটা করার সময় স্কাল্পের উপরে জমে থাকা অ্যাসিডের স্থর সরে যায়। ফলে চুল এবং স্কল্প, উভয়ের স্বাস্থ্যেরই উন্নতি ঘটে।

৩. অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের প্রবাহ বেড়ে যায়:
যেমনটা আগেও আলোচনা করা হয়েছে যে চুল আঁচড়ানোর সময় স্কাল্পে রক্ত চলাচল চোখে পরার মতো বেড়ে যায়। ফলে অক্সিজে়ন সমৃদ্ধি রক্ত এবং একাধিক পুষ্টকর উপাদান চুলের গোড়ায় পৌঁছে গিয়ে চুলের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায়। সেই সঙ্গে চুল পরাও কমে যায়।

৪. চুলের ঔজ্জ্বল্য বাড়ে:
আমাদের চুলের গোড়ায় থাকা একাধিক হরমোনাল এবং তেলের গ্রাল্ডগুলি মারাত্মক অ্যাকটিভ হয়ে যায়। ফলে চুলের ঔজ্জ্বল্য বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি সৌন্দর্যও চোখে পরার মতো বৃদ্ধি পায়।

৫. প্রাণ ফিরে পায় চুল:
প্রতিদিন চুল আঁচড়ালে চুল আরও শক্তোপক্তো এবং প্রাণচ্ছ্বল হয়ে ওঠে। তাই সবশেষে একথা বলতেই হয় যে সুন্দর-স্বাস্থ্যবান চুল পেতে যে কোনও প্রসাধনি ব্যবহারের আগে চুল আঁচড়ানোর অভ্য়াস করুন। দেখবেন বেশি উপকার পাবেন।

***এই ধরনের আরও টিপস-ট্রিকস, অফার এবং শিক্ষামূলক পোস্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন***

কিছু সাবধানতা:
বেশ কিছু নিয়ম আছে যা মেনে চুল আঁচড়ালে তবেই উপকার পাওয়া যায়, না হলে চুলের ভাল হওয়ার থেকে ক্ষতি হয় বেশি। সেই নিয়মগুলি হল…
১. স্নানের পর ভুলেও চুল আঁচড়াবেন না। এই সময় চুলের গোড়া খুব দর্বল অবস্থায় থাকে। ফলে এমন পরিস্থিতিতে চুল আঁচড়ালে চুল পরা খুব বেড়ে যায়। প্রসঙ্গত, একান্তই যদি চুল ভেজা অবস্থায় আচড়ানোর প্রয়োজন পরে, তাহলে বড় দাঁতের চিড়ুনি ব্যবহার করাই ভাল। তাতে ক্ষতি কম হয়।
২. চুল আঁচড়ানো ভল। তবে বারে বারে যদি কেউ চুল আঁচড়ে যায়, তাহলে চুলের উপকার তো হয়ই না, উল্টে ক্ষতি হয়। আসলে এমনটা করলে চুলে চুলে ঘর্ষণ খুব বেড়ে যায়। ফলে চুল নষ্ট হয়ে যেতে শুরু করে।

You must be logged in to post a comment Login

নতুন পোস্ট’সমূহ

To Top