লাইফস্টাইল

সহীহ পদ্ধতিতে ব্রেকআপ – ছেলেদের জন্য ৮টি সহজ পরামর্শ

“ব্রেকআপ” পৃথিবীর একমাত্র শব্দ যা একই সাথে মন খারাপ এবং ভালো করে দিতে সক্ষম। এই ব্রেকআপ সঠিক নিয়মে করা আসলে শিল্পের পর্যায়ে পড়ে। কারণ বলা যায় না, আজ যার সাথে ব্রেকআপ করছেন, ভাগ্য খারাপ হলে কাল থেকে তার ছোট/বড় ভাই/বোনের সাথে সংসার শুরু করতে হতে পারে। এবং আপনার এক্স যে তখন হিন্দি/বাংলা সিরিয়ালের চিরাচরিত প্যাচ লাগানো ব্যক্তির ভূমিকা গ্রহণ করবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

 

মেয়েরা এই ব্রেক আপ করার পদ্ধতিকে আপন মহিমায় পানির মত সহজ করে নিয়েছে। তার শুধু বলে, “আমার বিয়ে ঠিক হয়ে গেছে” “we need some talk” “আমি যে মা হতে চলেছি” ইত্যাদি ইত্যাদি।

কিন্তু ছেলেদের জন্য ব্যাপারটা ক্লাস ফাইভের সরল অংক করার চেয়েও কঠিন।

তাই এই লেখায় তুলে ধরা হবে ঠিক কোন কোন পদ্ধতিতে ছেলেরা ব্রেক আপ করলে তাকে সহীহ ব্রেক আপের তালিকায় রাখা হয়। এবং পরবর্তীতে বিপদের সম্ভাবনা হয় অত্যন্ত ক্ষীণ।

১. সরাসরি বলুনঃ Yaa, Like its works. সরাসরি বললে যদি কাজ হতো তাহলে তো আর আমাকে এত কায়দা করে পোস্ট লিখতে হয় না। দ্রুত চলে যান ২ নাম্বার পয়েন্টে।

২. বন্ধুদের দিয়ে বলানঃ গার্ল ফ্রেন্ডের সাথে ব্রেকআপ করতে চান, কিন্তু নিজে বলতে ভয় পাচ্ছেন, যদি মেরে টেরে বসে? এই ক্ষেত্রে আপনার সবচেয়ে দূরের বন্ধুদের সাহায্য নিন। যারা অল্প বিস্তর আহত হলেও আপনার তেমন গায়ে লাগবে না। সফল হলে ভাল, কিন্তু যদি বুঝতে পারেন তারা বিফল হয়েছে, তবে বছর খানের আর তাদের সাথে যোগাযোগের দরকার নাই।

৩. মারামারি করুনঃ গার্ল ফ্রেন্ডের সাথে মারামারি ব্রেক আপ করার একটি ভাল পদ্ধতি। “তুই কেন আমার সাথে ব্রেক আপ করবি না” বলে তার উপর ঝাঁপিয়ে পড়ুন। চুল টেনে দেয়া, পিটে ধুপধাপ কিল দেয়া, তুলতুলে গালে চড় দেয়া, পেয়ারা গাছের ডাল দিয়ে পেটানো ইত্যাদি অপশন এই ক্ষেত্রে আপনার হাতে থাকছে।

৪. কামড়ে দিনঃ এটি মারামারির ই একটি অংশ, কিন্তু বিখ্যাত ফুটবলার সুয়্যারেজ কামড়াকামড়িকে লাইম লাইটে নিয়ে আসায় একে নিয়ে আলাদা পয়েন্ট করতে হল। গার্ল ফ্রেন্ডের হাতে, গলায় বা অন্য যে কোন উন্মুক্ত স্থানে উপযুক্ত শক্তিতে কামড় তাকে নিজ থেকে ব্রেক আপ করার উৎসাহী করে তুলতে পারে। তবে চুলে কামড়ানোর চেষ্টা করবেন না। এতে আপনি নিজেকে ব্যাক্কল হিসেবে দ্বিতীয়বার প্রমাণ করবেন।

৫. বিষ খাওয়ানঃ বিষ খাইয়ে মেরে ফেলা ব্রেক আপ করার একটি ভাল পদ্ধতি। এই ক্ষেত্রে প্রথমে গার্ল ফ্রেন্ডকে মিষ্টি মিষ্টি কথা বলে চিপায় নিয়ে যান। এর পর কোক, আইসক্রিম, লাচ্ছি ইত্যাদি কুখাদ্যের সাথে বেশি করে বিষ মিশিয়ে খেতে দিন। আশা করি সফলতা আসবে।

৬. ছাদ থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিনঃ বিষ খাওয়ানোর পরেও যদি কাজ না হয় তবে প্রথমে ক্ষমা চেয়ে নিন। এর কিছুদিন পর আপনার প্রতি সে বিশ্বাস ফিরে পেলে পার্শ্ববর্তী ৫তলা কোন বিল্ডিঙের ছাদ থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিন। গার্ল ফ্রেন্ড চ্যাপ্টা হয়ে গেলে আপনা আপনি ব্রেক আপ হয়ে যাবে।

৭. বিদেশে পাচার করে দিনঃ ছাদ থেকে ফেলার পরেও যদি সে বেচে থাকে এবং আপনার সাথে প্রেম চালিয়ে যেতে চায় তবে তাকে দুবাই, সৌদি আরব ইত্যাদি দেশে বুয়া হিসেবে পাঠিয়ে দিন। এতে করে আপনি যেমন বছরের বেশ কিছুটা সময় শান্তিতে থাকতে পারবেন, তেমনি তার পাঠানো টাকায় মৌজ মাস্তিও করতে পারবেন। কয়েক বছর পর তিনি দেশে ফিরে এলে আপনি নিজেই দুবাই সৌদি আরবে পালিয়ে যেতে পারেন।

৮. আত্মহত্যা করুনঃ এত রকম পরিকল্পনা বাস্তবায়নের পরেও যদি আপনার গার্ল ফ্রেন্ড আপনাকে ছেড়ে যেতে না চায়, তবে ভাই আপনার সামনে আত্মহত্যা ছাড়া আর কোন পথ খোলা নেই। তবে মরার আগে বিশ্ববাসীকে জানিয়ে যেতে ভুলবেন না, আপনি আসলে ওই মেয়েটিকে ঠিক কি কি করেছিলেন যার কারণে সে আপনাকে ছেড়ে যেতে চাইছে না? এতে আপনার না হলে ভবিষ্যৎ ব্যাক্কল প্রেমিক সম্প্রদায়ের বিশেষ উপকার সাধিত হবে।

***এই ধরনের আরও টিপস-ট্রিকস, অফার এবং শিক্ষামূলক পোস্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন***

Source: Somewhereinblog

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ

নতুন পোস্ট’সমূহ

To Top