কম্পিউটার জগৎ

জেনে নিন যে উপায় অবলম্বন করলে কোনোদিন হ্যাক হবে না আপনার ওয়্যারলেস পাসওয়ার্ড। যে যতবড় হ্যাকারই হোউক না কেনো।

আমার আজকের Post-এর বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করার আগে আমরা জেনে নেই কি কি কারণে আমাদের ওয়াইফাই নেটওয়ার্কের পাসওয়ার্ড হ্যাক হয়ে যায়। প্রথমত আমরা সকলেই একটি বিষয়ে একমত হব যে, এক কথায় হ্যাক মানে (চুরি)। এ বিষয়ে মুল কথা হচ্ছে আমরা জেনে বা না জেনেই কোনো না কোনোভাবে হ্যাকারকে পাসওয়ার্ড পাওয়ার রাস্তা বাতলিয়ে না দিলে সে (হ্যাকার) পাসওয়ার্ড কোনোদিনই পাবে না বা পেলেও সেটা দিয়ে সে কিছুই করতে পারবে না। তো এই কথাগুলির মধ্যেই কিছু প্রশ্ন হয়ে গিয়েছে যেমনঃ

  • আমরা কিভাবে না জেনে থাকি যে আমার পাসওয়ার্ড তো আমি ছাড়া এই দুনিয়ায় আর কেউ জানে না।
  • আমরা কিভাবে হ্যাকারকে সাহায্য করি?
  • পাসওয়ার্ড পেলেও হ্যাকার কিছু করতে পারবে না এর মানে কি?

প্রিয় টেকটিম ভিউয়ার্স উপরের এই প্রশ্নগুলি নিয়েই আমার আজকের এই Post। আজকে আমি আপনাদের জানাতে বা বুঝাতে চেস্টা করব কিভাবে আপনারা আপনার ওয়াইফাই কানেকশনের পাসওয়ার্ড-কে সর্বচ্চ সিকিউর করতে পারেন। যা কিনা কোনো হ্যাকার-এর পক্ষে ভাঙ্গা চির কঠিন হয়ে যাবে চির-জীবনের জন্য।

খারাপ লাগা সত্তেও একটা কথা সবাইকে মেনে নিতে হবে যে, আমাদের ওয়্যারলেস ডিভাইস-এর পাসওয়ার্ড আমাদের কাছের মানুষরাই আগে জানে তারপর পাড়া-প্রতিবেশি। কাছের মানুষ বলতে ১ম সারির শত্রু হচ্ছে আমাদের ফ্রেন্ড সার্কেল। তাদের মধ্যে কেউ ভালো যারা তাদের ডিভাইসে পাসওয়ার্ড দিয়ে একটিভ করে দিলে তা নিয়ে আর মাথা ঘামায় না। আর খারাপ হলে তারা অনাকাঙ্ক্ষিত অন্য মানুষকেও পাসওয়ার্ড দিয়ে আপনার বারোটা বাজিয়ে দিতে পারে (নিজস্ব অভিমত)। এখন কথা হচ্ছে পাসওয়ার্ড কারো মোবাইলে দেওয়ার সময় তা ঐ (যার মোবাইলে ওয়াইফাই একটিভ করছেন) মানুষ-এর আড়ালে দিলে কিভাবে সেই লোকটি পাসওয়ার্ড জানবে? এখানে উপায় হচ্ছে বেসিকলি ২টা যেমনঃ

  • ১/  যার মোবাইলে/ল্যাপ্টপ/পিসি-তে পাসওয়ার্ড দিচ্ছেন তার মোবাইল রুট করা থাকলে।
  • ২/ যার মোবাইলে/ল্যাপ্টপ/পিসি-তে পাসওয়ার্ড দিচ্ছেন সে ওয়াইফাই ডিভাইস সম্পর্কে অনেক জ্ঞানী হলে।

উপরের কথা অনুযায়ী কারো মোবাইল রুট করা থাকলে আর সেই ডিভাইসে ওয়াইফাই একটিভ করলে পাসওয়ার্ড শো করে তা জানা যায় সে কথা আমরা অনেকেই জানি।আবার কারো পিসি বা ল্যাপটপ-এ পাসওয়ার্ড দিয়ে ওয়াইফাই একটিভ করলেও ওয়্যারলেস সেটিংস-এ গিয়ে পাসওয়ার্ড জানা যায় সে কথাও আমরা জানি। ডেমো দেখতে বা বুঝতে নিচের ছবি দেখুনঃ

আবার কেউ অনেক জ্ঞানী হলে তার মোবাইল-এ পাসওয়ার্ড দিলে তার মোবাইল রুট না থাকলেও সে শুধু একবার দেখে বা আপনাকে জিজ্ঞেস করে জানবে যে, আপনার রাউটার কোন কোম্পানির। ব্যাস জানা শেষ হলে সে আপনার রাউটার সেটিংস-এ ইন করার চেস্টা করবে। যেমন টিপি-লিংক হলে ১৯২.১৬৮.০.১ এই লিংক-এ ইন করে সে দেখবে আপনি আপনার ডিভাইসে ডিফল্ট পাসওয়ার্ড দিয়ে রেখেছেন কিনা। ডেমো দেখতে বা বুঝতে নিচের ছবি দেখুনঃ

যদি ডিফল্ট পাসওয়ার্ড রাউটার হোমপেজে দেয়া থাকে তাহলে সে (যে পাসওয়ার্ড চুরির চেস্টা করবে) পাসওয়ার্ড জেনে ধুমাইয়া মজা নেয়া শুরু করবে  (***Admin ডিফল্ট পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে আপনার Tp Link রাউটারে লগিন করুন, তারপর মেনু থেকে System Tools>Password>old user password এবং new user password দিয়ে সেভ করুন)। চালাক হলে সে আপনার কোনো সেটিংস উল্টাপাল্টা করবে না কারণ, সেটিংস চেঞ্জ হয়ে গেলে আপনি কি করবেন চোর তা আগেই ভেবে রেখেছে। এখন কথা যা বাকি থাকে তা হলঃ আমার Post-এর বিষয়বস্তু। আপনার সরলতার সুযোগ নিয়েই হয়ত কোনো ফ্রেন্ড বা প্রতিবেশি আপনার থেকেই পাসওয়ার্ড তার ডিভাইসে একটিভ করে নিয়েছে। তারপরে সে অন্যকে বলেছে আমি অমুক ওয়াইফাই কানেকশন-এর পাসওয়ার্ড জানি। এতে করে কি হল?  ১/ আমরা খারাপ মানুষকে ভালো মনে করে পাসওয়ার্ড দিলাম। (হ্যাকারকে নিজেই দিলাম নিজের পাসওয়ার্ড) ২/ আমরা পাসওয়ার্ড দেয়ার সময় আগেপিছে না ভেবে পাসওয়ার্ড দেওয়ার পর সেই খারাপ লোকটিও তার জ্ঞান দিয়ে পাসওয়ার্ড জেনে গেলো।(আমি ছাড়াও আমার পাসওয়ার্ড অন্য কেউ জেনে গেলো) এখন এই রকম পরিস্থিতি ঠেকাতে আপনি যা করবেন তা হলঃ রাউটার হোমপেজের পাসওয়ার্ড চেঞ্জ করে রাখুন। (এতে করে জ্ঞানী হয়ে যাবে অজ্ঞান) ?   ?  রাউটারে (ACL) একসেস কন্ট্রোল প্যানেল চালু করে ওয়াইফাই ব্যবহার করুন। ডেমো দেখতে বা বুঝতে নিচের ছবি দেখুনঃ

এক্সেস কন্ট্রোল প্যানেল টিপি-লিংক রাউটার হোমপেজ:

(ব্যাস পাসওয়ার্ড জানলেও কেউ আপনার ডিভাইসে ইন করা থাক দুরের কথা সারা দুনিয়া পাসওয়ার্ড বিলিয়ে সে (চোর) কিছুই করতে পারবে না।) আপনার ব্যবহার করা ল্যাপটপ থাকলে সেই ল্যাপটপের ওয়াইফাই কানেকশনের পাসওয়ার্ড শো করার সেটিংস নস্ট করে দেন তাহলে হ্যাকার আপনার ল্যাপটপ থেকেও তথ্য চুরি করতে পারবে না কোনোদিন আর আপনিও থাকুন নিশ্চিন্তে নির্ভাবনায়।

এখন শেষ কথা হচ্ছে রাউটারে (ACL) এক্সেস কন্ট্রোল প্যানেল চালু করলে কি কি লাভ?  ?  ?

  • ১/ রুট করা মোবাইলে পাসওয়ার্ড দিয়ে ওয়াইফাই একটিভ করলেও, হ্যাকার প্রকৃতির মানুষটি পাসওয়ার্ড জেনেও কিছু করতে পারবে না,যদি আপনি রাউটার হোমপেজের আইডি/পাসওয়ার্ড চেঞ্জ করে রাখেন।
  • ২/ উপরের কথার মত একইভাবে কোনো পিসি/ল্যাপটপে পাসওয়ার্ড দিলে সে জানতে পারবে কি পাসওয়ার্ড, ব্যাস জানা পর্যন্তই আর বেশি কিছু করতে পারবে না। কেননা হোমপেজ-এর পাসওয়ার্ড চেঞ্জ + এক্সেস কন্ট্রোল প্যানেল চালু। সবদিক হতেই রাস্তা বন্ধ।(বাকিটা তো বুঝতেই পারছেন) ? ?

এভাবে আপনি আপনার ওয়াইফাই কানেকশনের পাসওয়ার্ড সর্বচ্চ সিকিউর করে রাখতে পারেন। আমাকে কেউ বাজি লাগতে বললে আমি বাজি ধরে বলতে পারি এভাবে সেটিংস মেনে কাজ করলে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত এমন হ্যাকার জন্মায়নি যে সে আপনার পাসওয়ার্ড চুরি করে তা দিয়ে মজা লুটবে। আর তারপরেও অতি জ্ঞানী হ্যাকার (যারা হাই-ক্লাস লেভেলে পড়ে যায়) তারা হয়তো পাসওয়ার্ড হ্যাক করতে পারবে। কিন্তু ভেবে দেখুন অমন হ্যাকার আমাদের এই সামান্য পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার জন্য নিশ্চয়ই আমাদের বাড়ির কিনারে এসে দাঁড়িয়ে হ্যাক করতে তাদের মুল্যবান সময় অপচয় করবে না।

কিভাবে আপনার ল্যাপটপের ওয়্যারলেস সেটিং-এর পাসওয়ার্ড হাইড করে দিবেন। কেউ দেখতে পারবে না আপনার ল্যাপটপ-এর ওয়্যারলেস পাসওয়ার্ড-

এই কাজ করতে হলে আপনাকে পিসির রান অপশনে গিয়ে রেজিস্ট্রি সেটিংস এর একটি রেজিস্ট্রি ডিলিট করতে হবে। ভয় পাওয়ার কিছু নেই রেজিস্ট্রি ডিলিট করার আগে আপনি আপনার ডিলিট করার ফাইলটি পিসিতে অন্য যেকোনো ফোল্ডারে ব্যাকআপ রেখে ডিলিট করে দিন। তাতে করে আপনি পুনরায় রেজিস্ট্রি এডিটরে ডিলিটকৃত ফাইলটি ইমপোর্ট করে সেটিংস ঠিক করে নিতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে/দেখতে ভিডিও টিউটোরিয়ালটি দেখতে পারেন-দেখুন এখানে

রেজিস্ট্রি ডিলিট করার শর্টকাট নেমঃ  {87BB326B-E4A0-4DE1-94F0-B9F41D0C6059}.

***এই ধরনের আরও টিপস-ট্রিকস, অফার এবং শিক্ষামূলক পোস্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন***

আজ এ পর্যন্তই সবাইকে আজকের মত বিদায় জানিয়ে আমার Post শেষ করছি, আল্লাহ্‌-হাফেজ।

আপনার ফেসবুক একাউন্ট ব্যবহার করে মতামত প্রদান করতে পারেনঃ

You must be logged in to post a comment Login

নতুন পোস্ট’সমূহ

To Top